রবিবার
১লা আগস্ট ২০২১
City News Banner

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের তিব্বত সফর

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তার আহ্বান পরিবেশমন্ত্রীর

ম্যাচ ও সিরিজ সেরা সৌম্য সরকার

City News Banner
সর্বশেষ

Loading...

কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করবেন যেভাবে

meat
আগামীকাল বুধবার সারা দেশে উদযাপিত হবে ইদুল আজহা। এই দিন সামর্থ্যবান মুসলমানরা আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন। তাই এ উৎসবকে কেন্দ্র করে ঘরে ঘরে প্রচুর কাঁচা মাংস থাকবে। প্রয়োজন হয় সঠিক পদ্ধতিতে মাংস সংরক্ষণ করা। যাতে মাংস তাজা, স্বাস্থ্যকর ও ব্যাকটেরিয়ামুক্ত অবস্থায় খাওয়ার উপযোগী থাকে। সিটি নিউজের পাঠকদের জন্য খুব সহজে মাংস সংরক্ষণের কিছু পদ্ধতি তুলে ধরা হলো।

পূর্ব প্রস্তুতি : কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করার জন্য প্রয়োজন কিছু পূর্ব প্রস্তুতির। আগেই ডিপ ফ্রিজের পুরোনো খাবার সরিয়ে ফেলুন। ফ্রিজ একদম খালি করে ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করে ফেলাই ভালো। আগে থেকে জমে থাকা রক্ত ও ময়লা থেকে জীবাণু মাংসের স্বাদ-গুণ নষ্ট করে দিতে পারে। তাই ফ্রিজের পরিচ্ছন্নতা অত্যন্ত জরুরি। সেই সঙ্গে আগেই জমিয়ে রাখুন বড় বড় আকৃতির অনেকগুলো পলিথিন ব্যাগ।

এখন বাজারে জিপবাগ কিনতে পাওয়া যায় চাইলে সেগুলোও কিনে রাখতে পারেন। কারণ ঈদের দিন আপনাকে পলিব্যাগে করেই মাংসগুলো ফ্রিজে রাখতে হবে। সেই সঙ্গে খেয়াল রাখুন কসাইয়ের মাংস কাটার স্থানটি যেন পরিচ্ছন্ন হয়। ধুলাবালিযুক্ত স্থানে মাংস কাটলে সেই মাংস খেতে বালি বালি লাগতে পারে।

এবার আসি মাংস সংরক্ষণ পর্বে। যদিও সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হলো ফ্রিজে রেখে মাংস সংরক্ষণ করা। কিন্তু এতেও কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়।

সাধারণত জবাইয়ের অন্তত ৩-৪ ঘণ্টা পর্যন্ত মাংসে রক্ত থাকে। সে অবস্থায় কোনোভাবেই মাংস ফ্রিজে রাখা যাবে না। মাংস সংরক্ষণের আগে ভালোভাবে ধুয়ে রক্ত পরিষ্কার করে নিন। এবার বড় চালনিতে করে মাংসের পানি ঝরিয়ে ফ্যানের নিচে রেখে শুকাতে দিন। সব পানি ঝরে গেলে পলিথিনের প্যাকেটে ভরে মাংস ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

মাংস যদি ধুতে না চান তাহলে পরিষ্কার শুকনা কাপড় দিয়ে মাংসের গায়ে লেগে থাকা রক্ত ভালমতো মুছে নিন। এবার পলিথিনে করে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

ফ্রিজে সংরক্ষণের জন্য একটু মোটা পলিথিন ব্যবহার করাই ভালো। তাহলে ফ্রিজ থেকে মাংস বের করার সময় প্যাকেট ছিঁড়ে যাবে না।

মাঝে মাঝে ফ্রিজে রাখা প্যাকেটগুলো একটু নাড়াচাড়া করুন। এতে করে প্যাকেট একটার সঙ্গে অন্যটা লেগে যাবে না। মাংস সংরক্ষণ করার জন্য অবশ্যই পরিষ্কার পলিথিন ব্যবহার করুন।

আগে ব্যবহার করা হয়েছে এমন পলিথিন না নেয়াই ভালো, কারণ এতে মাংস গন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ফ্রিজে মাংস রাখার পর তাপমাত্রা কমিয়ে দিন। তাহলে মাংস দ্রুত জমে শক্ত হবে।

এ ছাড়াও আরও দুটি উপায় রয়েছে : সবার আর্থ-সামাজিক অবস্থা এক হয় না। গ্রামে শহরের মতো সবার ঘরে ঘরে ফ্রিজ নেই। কাজেই নিচের উপায় দুটি অবলম্বন করলে তারা অনায়াসে অনেক দিন মাংস সংরক্ষণ করতে পারবেন।

জ্বাল দিয়ে মাংস সংরক্ষণ : যদি জ্বাল দিয়ে মাংস সংরক্ষণ করতে হয় তবে সেক্ষেত্রে মাংসে চর্বির পরিমাণ একটু বেশি থাকাই ভালো। কারণ এতে মাংস দীর্ঘদিন ভালো থাকে। প্রথমে মাংস ভালোভাবে ধুয়ে বড় একটা হাড়িতে নিন। এবার হলুদ ও লবণ মিশিয়ে পরিমাণমতো পানি দিয়ে মাংস জ্বাল দিন। এ পদ্ধতিতে দিনে কমপক্ষে ২ বার নিয়ম করে মাংস জ্বাল দিতে হবে।

রোদে শুকিয়ে মাংস সংরক্ষণ : রোদে শুকিয়ে মাংস সংরক্ষণ করতে হলে চর্বি ছাড়া মাংস নিতে হবে। প্রথমে মাংস পরিষ্কার করে ধুয়ে ছোট টুকরা করে নিন। এরপর একটি লম্বা তারে একটার পর একটা মাংস গেঁথে নিন। কাপড় শুকানোর মতো করে ছাদে বা বারান্দায় সেগুলো টানিয়ে দিন।

এ ছাড়া চুলার ওপরে তার বেঁধেও আগুনের তাপে মাংস শুকানো যায়। এই উপায়ে মাংস সংরক্ষণ করলে মাংসের সমস্ত পানি টেনে মাংস একদম শুকিয়ে যায়, ফলে দীর্ঘদিন তা ভালো থাকে। ছাদে মাংস শুকাতে হলে পাতলা কাপড় বা নেট দিয়ে মাংস ঢেকে দিন। এতে করে ধুলাবালি পড়ে মাংস নোংরা হবে না।

পরপর ৫-৬ দিন মাংস রোদে দিন। মাংস শুকিয়ে একদম শক্ত হলে মুখ বন্ধ করা পাত্রে বা টিনের কৌটায় ভরে ভালো করে মুখ বন্ধ করে রাখুন। মাঝে মাঝে কৌটা ধরে মাংস রোদে দিন। তাহলে পোকার আক্রমণ হবে না। রোদে শুকানো মাংস রান্না করার কমপক্ষে ১ ঘণ্টা আগে হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এতে মাংস নরম হবে।

গরুর মাংসে ২৩ থেকে ২৭ শতাংশ প্রোটিন থাকে, যা অত্যন্ত উচ্চমানের। এ ছাড়া এই মাংসে লৌহ, ফসফরাস ও ভিটামিন ডি থাকে। তাই মাংসের পুষ্টিগুণ যাতে অতি সহজেই নষ্ট না হয় সেজন্য সঠিক নিয়মে মাংস সংরক্ষণ করা উচিত। আর অল্প তাপে বেশি সময় ঢেকে রান্না করলে মাংসের ভিটামিন সুরক্ষিত থাকে।

জেডআই/এএমকে