রবিবার
১লা আগস্ট ২০২১
City News Banner

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের তিব্বত সফর

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তার আহ্বান পরিবেশমন্ত্রীর

ম্যাচ ও সিরিজ সেরা সৌম্য সরকার

City News Banner
সর্বশেষ

Loading...

সুস্থ থাকতে সকালে যা খাবেন, যা খাবেন না

সুস্থ্য থাকতে সকালে যা খাবেন, যা খাবেন না
অনেকেই সকালে ঘুম থেকে উঠে কোনোরকম একটা কিছু মুখে দিয়েই ছোটেন নিজ নিজ কাজে। না বুঝেই সকালের খাবারে তেমন একটা গুরুত্ব দেন না। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালের খাবার এড়িয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। 

সারারাত খালি থাকার পরে সকালে আপনার পেট তৈরি থাকে খাবারের জন্য। তাই সকালের খাবারটিই হওয়া চাই সবচেয়ে ভারী। আপনি যদি সকালের খাবারের দিকে মনোযোগ না দেন তবে তা আপনার ত্বকের জন্যও ক্ষতির কারণ হতে পারে। 

সকালের খাবার খাওয়া নিয়ে আপনার ভুলভাল ধারণা শরীরের মেটাবলিজম, ত্বক, হজম প্রক্রিয়াসহ সবকিছুকেই ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। তবে এমন খাবার থেকে বিরত থাকবেন যা আপনার শরীরকে সারাদিনের জন্য দুর্বল করে ফেলে। আসুন জেনে নেই সকালে কী খাবেন আর কী খাবেন না।

সকালে যা খাবেন :

১. সকালে মধু আপনার মন ও শরীর সতেজ করে তুলতে সহায়তা করে। খাদ্য পরিপাক প্রক্রিয়াও শক্তিশালী করে। এটি মস্তিষ্কের কাজ করে ত্বরান্বিত।

২. নাশতায় বাদাম থাকলে পরিপাক প্রক্রিয়া ভালো করে। এ ছাড়া পরিপাকতন্ত্রের পিএইচের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে রাখে।

৩. সকালের নাস্তায় যে সাধারণ আটা বা গমের রুটি খান, তাও কিন্তু আপনার ত্বকের জন্য উপকারী হতে পারে। 
২ টেবিল চামচ গমে ১৫ শতাংশ ভিটামিন ‘ই’ এবং ১০ শতাংশ ফলিক অ্যাসিড থাকে। এ ছাড়া হজম প্রক্রিয়ার কাজটিও সহজ করে তোলে।

৪. সকালের খাবারের সহজ একটি পদ হলো ডিম। আর এই ডিম ত্বকের কোলাজেন উৎপাদনে বিশেষ সহায়ক, এর ফলে ত্বক কোমল ও টানটান থাকে।

৫. চাল, ডাল, পালংশাক, মিষ্টি কুমড়া, গাজর, কাঁচা পেঁপে, মিষ্টি আলু, মশলা মিলে সুস্বাদু এক খাবার খিচুড়ি। এগুলো অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের খুব ভালো উৎস। 

৬. সকালে খাবারের তালিকায় গ্রিন আপেল, কালো আঙ্গুর, পাকা পেঁপে, কিউয়ি, বেরিজাতীয় ফল, কলা, বেদানা এসব ফল রাখতে পারেন। 

৭. পাস্তাও হতে পারে সকালের নাস্তায় স্বাস্থ্যকর একটি খাবার। হোল গ্রেইন পাস্তায় ক্যালরি মোটামুটি পরিমাণ থাকে, সঙ্গে নিউট্রিয়েন্ট ও ফাইবার পর্যাপ্ত থাকে। এতে ডিম, সবজি, প্রন অথবা চিকেন মিলিয়ে তৈরি করতে পারেন। 

সকালে যা খাবেন না : 

১. টমেটোতে উচ্চমাত্রায় টনিক অ্যাসিড থাকে। এটি পেটে অ্যাসিডিটি বাড়িয়ে দিতে পারে। পরবর্তী সময়ে এর কারণে গ্যাস্ট্রিক থেকে আলসার পর্যন্তও গড়াতে পারে।

২. কাঁচা শাকসবজিতে অ্যামিনো অ্যাসিডের মাত্রা বেশি থাকে। খালি পেটে শসা বা সবুজ শাকসবজি খেলে বুকজ্বালা, পেট ফাঁপা, পেটে ব্যথার ঘটনাগুলো হতে পারে।

৩. খালি পেটে ইস্ট আছে, এমন খাবার খেলে পেট ফেঁপে যায়। জ্বালাপোড়াও করতে পারে।

৪. এ সময়ে মিষ্টি খাবার খেলে ঝামেলা হতে পারে। মিষ্টিজাতীয় খাবার ইনসুলিনের মাত্রাও বাড়ায়; যা পরবর্তী সময়ে ডায়াবেটিস হওয়ার আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয়।

৫. বেশি মসলাজাতীয় খাবার পেটে জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করতে পারে। এ ছাড়া খাবার হজমেও বাধা সৃষ্টি করে।

৬. সকাল সকাল খালি পেটে কোমল পানীয় খেলে খাবার হজম হতে বেশি সময় নেয়।

৭. লেবুজাতীয় খাবার খালি পেটে খেলে অম্বল বা গ্যাসট্রিক হওয়ার আশঙ্কা প্রবল।

তাই আমাদের সকালের খাবারের দিকে নজর দিতে হবে। সকালে ঘুম থেকে উঠেই এমন কিছু খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে যা আমাদের সারাদিন সুস্থ রাখার পাশাপাশি চাঙাও রাখবে। 

টিআর/এএমকে