খুলনায় নর্দান ইউনিভার্সিটির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র প্রমিজ দেবনাথের রহস্যজনক মৃত্যু ঘটেছে। 


বুধবার (২২ জুন) রাতে খুলনা নগরীর গোবরচাকা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে এলাকাবাসী। এ সময় প্রমিজের মাথায় আঘাতের চিহ্ন ও শরীরে রক্তের দাগ দেখা যায়।


পুলিশ জানায়, প্রমিজের ঘরে বেশ কিছু স্থানে রক্তের দাগ ও সিসিটিভির ফুটেজে তার বান্ধবীকে দ্রুত স্থান ত্যাগ করতে দেখা গেছে। এ ছাড়া একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে বাবা-মাকে উদ্দেশ্য করে লেখা রয়েছে, সে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেছে। তাকে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে দিও। ওই টাকা নিয়ে সে ভালো থাকুক। গোটা ঘটনাটি বিশ্লেষণ করে মৃত্যুটিকে রহস্যজনক বলছে পুলিশ।


নগরীর সোনাডাঙ্গা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আতিক আহমেদ চৌধুরী জানান, লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য খুমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে লাশের ময়নাতদন্ত হওয়ার কথা রয়েছে। প্রমিজকে শেষবারের মতো দেখতে সকাল থেকে হাসপাতাল মর্গের সামনে ভিড় করে তার সহপাঠীরা।


কমিশনার আরও জানান, একই বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক সিনিয়র ছাত্রীর সঙ্গে প্রমিজের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ছাত্রীটি বিত্তবান পরিবারের হওয়ায় প্রমিজকে সে বিভিন্ন সময় অর্থ সহায়তার পাশাপাশি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন কিনে দেয়। বুধবার দুপুর থেকে তারা একই সঙ্গে অবস্থান করছিল। সন্ধ্যায় তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। প্রমিজকে যে মারধর করা হয়েছে তার আলামত মিলেছে।


তিনি জানান, ঘটনার পর থেকে মেয়েটি আত্মগোপনে রয়েছে। তাকে খুঁজতে পুলিশ কাজ করছে। এ দিকে ছেলের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় প্রমিজের পিতা জ্যোতিময় নাগ বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।


এইচএ /এএল