প্রয়াত কিংবদন্তি ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনার চিকিৎসায় অবহেলা করায় ৮ চিকিৎসক ও নার্সের বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন আর্জেন্টিনার পেনাল কোড। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, অসুস্থ ম্যারাডোনার চিকিৎসায় অবহেলা করেছিলেন তারা।

আর্জেন্টিনার একটি মেডিক্যাল প্যানেল ম্যারাডোনার চিকিৎসায় 'ঘাটতি ও অনিয়ম' থাকার প্রমাণ দেওয়ার পর হত্যামূলক অপরাধ বিচারের আদেশ দিয়েছেন দেশটির একজন বিচারক।  খবর বিবিসির।

২০২০ সালের নভেম্বরে হার্ট অ্যাটাকের পর ৬০ বছর বয়সে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান ফুটবল জাদুকর ম্যারাডোনা। ওই মাসের শুরুর দিকে মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বাঁধার ঘটনায় অস্ত্রোপচার করে বাড়ি ফিরে সুস্থ হয়ে উঠছিলেন তিনি।

তবে, এর কিছুদিন পরই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৮৬র বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। তার মৃত্যুর কয়েক দিন পর আর্জেন্টিনার প্রসিকিউটরএরা চিকিৎসার সঙ্গে জড়িত চিকিৎসক ও নার্সদের ব্যাপারে তদন্ত শুরু করে।

গত বছর ২০ জন বিশেষজ্ঞ নিয়ে একটি প্যানেল গঠন করে ম্যারাডোনার চিকিৎসা বিশ্লেষণ করা হয়। তাতে দেখা যায়- ম্যারাডোনার চিকিৎসা দেওয়া দলটি চিকিৎসায় ঘাটতি এবং বেপরোয়া পদ্ধতিতে কাজ করেছে। তাদের দেওয়া চিকিৎসা অনুপযুক্ত ছিল।

আদালতের নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বিশেষজ্ঞ দলটি জানিয়েছে, ম্যারাডোনার মেডিক্যাল টিম যদি উপযুক্ত চিকিৎসা যথাসময়ে দিতো তাহলে দিয়েগো ম্যারাডোনার বেঁচে থাকার ভালো সম্ভাবনা থাকতো।

যাদের বিচার শুরু হতে যাচ্ছে, তাদের মধ্যে রয়েছেনম্যারাডোনার নিউরোসার্জন এবং ব্যক্তিগত চিকিৎসক লিওপোলদো লুক, একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও মনোবিজ্ঞানী, দুজন চিকিৎসক, দুজন নার্স এবং তাদের প্রধান কর্তা। তবে তারা সবাই ম্যারাডোনার মৃত্যুর দায় অস্বীকার করেছেন।

অভিযুক্ত আটজনের বিরুদ্ধেই আর্জেন্টিনার আইন অনুসারে হত্যার ব্যাপারে বিচার হবে। বিচারে তারা দোষী প্রমাণ হলে আট থেকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। তবে, বিচারের তারিখ এখনও নির্ধারণ করা হয়নি।

জেডআই/এএল