বন্যার সময় বিভিন্ন রোগ ও দুর্ঘটনায় সারা দেশে এ পর্যন্ত ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ১৭ মে থেকে ২১ জুন পর্যন্ত এ সব মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

বুধবার (২২ জুন) বিকালে দেশের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে আসে। প্রতিবেদনে জানানো হয়, দেশের ৯ জেলায় গত ৩৬ দিনে ৪২ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে সিলেট বিভাগে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। সিলেট জেলায় মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। সুনামগঞ্জে ৫ জন এবং মৌলভীবাজারে ৩ জন মারা গেছে।

ময়মনসিংহ বিভাগে বন্যার কারণে মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। এর মধ্যে ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা ও জামালপুরে ৫ জন করে মারা গেছে। আর শেরপুরে প্রাণহানি হয়েছে ৩ জনের।

রংপুর বিভাগে এখন পর্যন্ত বন্যায় ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে রংপুরে কারও মৃত্যু না হলেও কুড়িগ্রামে ২ এবং লালমনিরহাটে ১ জন মারা গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, বন্যায় সারা দেশে পানিবাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। মঙ্গলবার পর্যন্ত বন্যায় বিভিন্ন রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৪০৩ জনে দাঁড়িয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ১৭ মে থেকে ২১ জুন পর্যন্ত দেশে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ৫১৬ জন। তবে এখন পর্যন্ত ডায়রিয়ায় কারও মৃত্যু হয়নি। চক্ষু রোগে আক্রান্ত হয়েছে ১১৩ জন। বজ্রপাতে আক্রান্ত ১৩ জনের মধ্যে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। চারজনকে সাপে কামড়ালেও মৃত্যু হয়েছে একজনের। এই সময়ে পানিতে ডুবে ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

চর্ম রোগে আক্রান্ত হয়েছে ১৬৩ জন, চোখের প্রদাহজনিত রোগে আক্রান্ত হয়েছে ৬১ জন, নানাভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে ৩৯ জন। এছাড়া অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হয়েছে মোট ৪৮১ জন।

আরআই/এএল