বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা বহুমুখী সেতু বুঝে পেলো বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ (বিবিএ)। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ বুধবার (২২ জুন) আনুষ্ঠানিকভাবে সেতু হস্তান্তর করেছে।

ইতোমধ্যে সেতুর সব ধরনের কাজ শেষ হয়েছে। শনিবার (২৫ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সেতু উদ্বোধন করবেন। রবিবার (২৬ জুন) সকাল ৬টা থেকে এ সেতুতে গাড়ি চলাচল শুরু হবে। এর আগে আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া হিনসেবে সেতুটি বুঝে নেয় সেতু কর্তৃপক্ষ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সুধী সমাবেশে প্রায় সাড়ে তিন হাজার অতিথিকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে সেতু বিভাগ। বুধবার পর্যন্ত ৩ হাজার ২০০-এর বেশি কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় পদ্মা সেতু। এটি প্রথম দ্বিতল বিশিষ্ট সেতু। ২০১৪ সালের ২৬ নভেম্বর এ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

চুক্তি অনুযায়ী, ৪৮ মাসে ২০১৮ সালের ২৫ নভেম্বরের মধ্যে এ সেতু নির্মাণ করার কথা ছিল।

সেতুর ৪২টি পিলারের মধ্যে ২২টির নকশায় পরিবর্তন আনা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, করোনাভাইরাস সংক্রমণসহ নানা কারণে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এ সেতু নির্মাণ কাজ শেষ করা সম্ভব হয়নি।

৪৩ মাস সময় বাড়িয়ে নির্মাণ কাজের শেষ সময় ৩০ জুন নির্ধারিত রয়েছে। সেতুটি ওঅ্যান্ডএম (ওপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) পদ্ধতিতে রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে।

আরআই/এএল