সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। তবে কমেনি বানভাসিদের দুর্ভোগ। ইতোমধ্যে পানিবন্দি রয়েছে পাঁচটি উপজেলার প্রায় অর্ধ-লক্ষাধিক মানুষ। গত ১২ ঘণ্টায় ৫ সেন্টিমিটার কমে বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) সকালে যমুনা নদীর পানি শহর রক্ষাবাঁধ পয়েন্টে বিপৎসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। জানা গেছে, বন্যাকবলিত এলাকায় পানি কমলেও দুর্ভোগ কমেনি জেলার পাঁচটি উপজেলার ৩৮টি ইউনিয়নের পানিবন্দি প্রায় ৮ হাজার ৪০০ পরিবারের ৫০ হাজার মানুষের।

এদিকে বন্যাকবলিত এলাকাগুলোর বসতবাড়ি, হাটবাজার, রাস্তা-ঘাট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় চরম দুর্ভোগে রয়েছেন বানভাসিরা। এ সকল এলাকার প্রায় সাড়ে ৯ হাজার হেক্টর ফসলি জমির রোপা ও বোনা আমনের বীজতলাসহ উঠতি ফসল নষ্ট হওয়ায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন কৃষকরা। বন্যা কবলিত পাঁচটি উপজেলার বন্যার্তদের মাঝে বিতরণের জন্য ইতোমধ্যেই ১৪০ টন জিআর চাল, নগদ ২ লাখ টাকা ও ৪০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড সিরাজগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানান, যমুনা নদীর পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে সিরাজগঞ্জে চলমান বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

আরআই