কলকাতা পুলিশ ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪১ এ ধারায় ওই নোটিশ পাঠায়। কিন্তু সোমবার (২০ জুন) নুপুর শর্মা নারকেলডাঙ্গা থানায় হাজিরা দেননি। পরিবর্তে তিনি কলকাতা পুলিশকে একটি ই-মেইল পাঠিয়েছেন। ই-মেইলে জানিয়েছেন, এখন তার জীবনের ওপর ঝুঁকি রয়েছে। এখন তিনি যেতে পারছেন না। জীবনের ঝুঁকি আছে, আশঙ্কা প্রকাশ করে এখনই হাজির হতে পারবেন না বলে জানিয়ে কলকাতা পুলিশের কাছে ৪ সপ্তাহ সময় চেয়ে আবেদন জানালেন, মুহাম্মদকে (স.) নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করা সদ্য দলীয় মুখপাত্র পদ থেকে পদচ্যুত বিজেপি নেত্রী নুপুর শর্মা।

এর আগে নুপুর শর্মার বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন থানায় এফআইআর করা হয়। কলকাতার নারকেলডাঙ্গা থানা এমনই এক এফআইআরের ভিত্তিতে ২০ জুনের মধ্যে নুপুরকে নারকেলডাঙ্গা থানায় হাজির হওয়ার নির্দেশ দেয়।

কলকাতা পুলিশ ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪১-এ ধারায় ওই নোটিশ পাঠায়। কিন্তু সোমবার নুপুর শর্মা নারকেলডাঙ্গা থানায় হাজিরা দেননি। পরিবর্তে তিনি কলকাতা পুলিশকে একটি ই-মেইল পাঠিয়েছেন।

কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, বিতর্কিত বিজেপি নেত্রী নুপুর শর্মা ওই ই-মেইলে জানিয়েছেন, এখন তার জীবনের ওপর ঝুঁকি রয়েছে। এখন তিনি যেতে পারছেন না। ৪ সপ্তাহ পরে তিনি নারকেলডাঙ্গায় হাজির হতে পারবেন। সোমবার পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার তৃণমূল নেতা, মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় নাম উল্লেখ না করে নুপুরের বক্তব্যের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনেন। বিজেপি নেত্রী নুপুর শর্মার মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে করা বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে গোটা দেশের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

হাওড়া, হুগলি, নদীয়া, উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন জেলায় পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। গোটা দেশের সঙ্গে নুপুর শর্মার মন্তব্যের বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় এফআইআর করা হয়। তবে কলকাতা পুলিশ আবার তাকে কবে ডেকে পাঠাবে, সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

আরআই/এএল