সিট দখল নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে।

রোববার (৫ জুন) রাত ১০টার দিকে এ সংঘর্ষ হয়। এরপর প্রায় দুই ঘণ্টা হল ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর শিকদার এবং সাধারণ সম্পাদক মিশাত সরকারের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, হাতহাতি চলে বলে জানিয়েছে হলের শিক্ষার্থীরা। পরে তানভীর শিকদার ও মিশাত সরকারের হস্তক্ষেপে নিয়ন্ত্রণে আসে পরিস্থিতি।

এ ব্যাপারে শিক্ষার্থীরা বলেন, বিভিন্ন অনিয়মের কারণে ২০২০ সালের শুরুতে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কৃত হন ছাত্রলীগের সাবেক মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ রানা (২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ)। বহিষ্কৃত হলেও হল সংসদের ভিপি এমএম কামাল উদ্দিনের সঙ্গে সুসম্পর্কের সুবাদে অবৈধভাবে হলের ২২ নম্বর কক্ষে থাকতেন। কিন্তু কিছুদিন আগে মাসুদ রানা হল ছেড়ে দিলে, সেখানে হল ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর শিকদার এক শিক্ষার্থীকে তুলে দেন। এতে সাধারণ সম্পাদক মিশাত সরকারের সঙ্গে শুরু হয় অন্তর্দ্বন্দ্ব।

এ বিষয়ে তানভীর গণমাধ্যমকে জানান, সিটটি জয়পুরহাটের এক ছেলের হলেও হুট করে সেক্রেটারি গ্রুপের ছেলেরা দাবি করছে, এটা তাদের সিট। তারা ওই শিক্ষার্থীকে নামিয়ে দিয়ে ওখানে আরেকজনকে উঠানোর চেষ্টা করে।

তবে উল্টো কথা বলছেন মিশাত সরকার। তার দাবি, সিটের সাবেক মালিক মাসুদ ইচ্ছে করেই তাদের সিটটি বুঝিয়ে দিয়ে গেছেন।

রাত ১২টায় পরিস্থিতি শান্ত হলে, এসএম হলে আসেন জ্যেষ্ঠ আবাসিক শিক্ষক মো. বেলাল হোসেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুই গ্রুপের সঙ্গে কথা বলে সমাধান করা হবে।


সাজেদ/এএল