বাগেরহাটের রামপালে শালীকার সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের জেরে সদ্যজাত নবজাতক শিশুকে নদীতে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে দুলাভাইয়ের বিরুদ্ধে। শুক্রবার (১৩ মে) দুপুরে উপজেলার মল্লিকেরবেড় ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে

ঘটনায় একই গ্রামের আম্বিয়া বেগম বাদী হয়ে রামপাল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন পরে রামপাল থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে আলামিন শেখ তার শ্বশুর শাহাজাহান হাওলাদারকে গ্রেফতার করেছে। ২৬ বছর বয়েসী আলামিন মল্লিকেরবেড় ইউনিয়নের কালাম শেখের ছেলে ৫২ বছর বয়েসী একই গ্রামের জামেল হাওলাদারের ছেলে।

শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মল্লিকেরবেড় ইউনিয়নের বাসিন্দা আলামীন শেখ তার শ্বশুর বাড়িতে বসবাসের সুবাদে তার সঙ্গে ১৭ বছর বয়সী চাচাতো শালিকার অবৈধ সম্পর্ক গড়ে ওঠে শারীরিক সম্পর্কের একপর্যায়ে শালিকা গর্ভবতী হয়ে পড়ে৷ শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে তার প্রসব বেদনা উঠে। তখন গোপনে তার দুলাভাই আলামিনতার শ্বশুর শাহাজাহান এবং ওই মেয়ের পরিবারের লোকজন তাকে নিয়ে গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে রওনা হন। পথিমধ্যে জনৈক কবির বাড়ির সামনের একটি খালপাড়ে একটি পুত্রসন্তান প্রসব করে ১৭ বছর বয়সী ওই কিশোরী৷ এ সময় আলামীন তার শ্বশুর মিলে শিশুটিকে নদীতে ফেলে হত্যা করে৷ এরপর তার মরদেহ খালের পাশে পুতে ফেলার সময় স্থানীয়রা বিষয়টি দেখতে পায়। পরে তাদেরকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়৷ রামপাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটির মরেদেহ উদ্ধার করে এবং আলামিন তার শ্বশুর শাহাজাহানকে আটক করে।

রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সামসুদ্দিন বলেন, ‘ঘটনার পর স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে আলামিন তার শ্বশুরকে আটক করা হয়। ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।’

 

এএমকে