নাটোরে সন্ত্রাস বিরোধী বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ফেরার পথে ইউপি মেম্বারসহ ৩ যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (১৩ মে) রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

জানা গেছে, গত বুধবার জেলার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাসুদের ওপর হামলার প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেলে শহরের স্টেশন বাজার এলাকায় সন্ত্রাস বিরোধী বিক্ষোভ সমাবেশ করে যুবলীগ। সমাবেশ শেষে সদরের তেবাড়িয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ও যুবলীগ কর্মী আবুল হোসেন, লিটন ও আব্দুল আজিজ নিজ একালায় ফিরছিলেন। রাস্তায় রাত ৮টার দিকে একডালা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে সন্ত্রাসীরা ওই ৩ জনকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। এদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

নাটোর সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আল আমিন জানান, আহতদের মধ্যে তেবাড়িয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আবুল হোসেন ও লিটনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। আর আব্দুল আজিজকে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ত্রাণ উপকমিটির সদস্য ইমরান সোনার জানান, আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীরা এই হামলা করেছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আজিজুল ইসলাম আরজু বলেন, পুলিশের অবহেলার কারণে একের পর এক তৃণমূলের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর অনুপ্রবেশকারীরা হামলা করছে।

অপরদিকে হামলাকারীদের গ্রেফতারের জন্য ৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন বিপ্লব। তিনি বলেন, রাতের মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেফতার না করা হলে শনিবার থেকে কঠোর আন্দোলনে যাবে যুবলীগ।

তবে এ বিষয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহার দাবি, অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে এই ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীদের গ্রেফতারে জন্য অভিযান চলছে।


সাজেদ/