চমকের উস্তাদ কিং খান শাহরুখ খান। এবারের ঈদে তার ভক্তদের বার বার চমক দিয়েছেন। মঙ্গলবার (৩ মে) দুই বছর পর ঈদে মান্নাতের বাইরে জমায়েতের অনুমতি দিয়েছিলেন কিং খান। 

বাংলোর বারান্দা থেকে হাত নেড়ে ও চুমু ছুড়ে ভক্তদের ঈদের শুভেচ্ছা জানান এই অভিনেতা। আর সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, ‘ঈদের দিনে আপনাদের সঙ্গে দেখা করার আনন্দই আলাদা। আল্লাহ আপনাদের জীবন ভালোবাসা আর খুশিতে ভরিয়ে দিক। ঈদ মোবারক।’

বৃহস্পতিবার (৫ মে) দুপুরে মান্নাতে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতদের মধ্যাহ্নভোজের আমন্ত্রণ জানান শাহরুখ খান। নেট দুনিয়ায় সেসব ছবি ভাইরাল হতেই সাড়া পড়ে গেছে।

ঈদের দিন দুয়েক কাটতে না কাটতেই নিজের বাংলো মান্নাতে মহাভোজের আয়োজনে আমন্ত্রিত ভারতে নিযুক্ত দেশ-বিদেশের সব রাষ্ট্রদূত। ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যমের মতে, আয়োজনটি ছিলো একেবারে রাজকীয়। ফ্রান্স, কানাডা থেকে শুরু করে দক্ষিণ এশিয়ার ট্রেড কমিশনার সবাই ছিলো এই মহাভোজে।

কিং খানের এমন ম্যাজিকাল আতিথেয়তা দেখে মুগ্ধ হয়েছেন ভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতেরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁরা বলিউড তারকাদম্পতি শাহরুখ-গৌরীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। আর এসব ছবি দেখে অনেক ভক্তই মন্তব্য করেছেন, ‘এর আগে কোনো বলিউড তারকা এহেন মহা-আয়োজন করেছেন কিনা সন্দেহ, শাহরুখ প্রকৃত অর্থেই কিং খান।’

পরনে কালো টি-শার্ট, এলোমেলো চুলে কিং খানকে বেশ তরুণ এবং ফুরফুরে দেখাচ্ছিল। মান্নাতের সাজসজ্জাও ছিল চমকে যাওয়ার মতো। যা কিনা পুরোটাই গৌরী খানের নিজের হাতে সাজানো। এসবের বেশ কিছু ছবি দেখা গেছে টুইটার ও ফেসবুকে।

বৃহস্পতিবার মান্নতের সেই আড্ডার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ার সুবাদে এখন ভাইরাল। কানাডার রাষ্ট্রদূত ডেইডরা কেলি শাহরুখের বাড়িতে সাক্ষাতের ছবি শেয়ার করে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাঁকে। পাশাপাশি এহেন রাজকীয় আয়োজনের জন্য গৃহিণী গৌরী খানের আতিথেয়তারও প্রশংসা করেছেন। কেন সারা বিশ্বে শাহরুখের অগণিত ভক্ত, সে কথা লিখেছেন তিনি। টুইটারে কেলি লিখেছেন, ‘এবার বুঝলাম কিং খানে কেন মুগ্ধ সারা বিশ্ব। তোমাদের এই উষ্ণ অভ্যর্থনার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ শাহরুখ-গৌরী।

বলিউড আর কানাডিয়ান ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বন্ধন যেন আরও শক্ত হয়, আরও নতুন কাজের পথ প্রশস্ত হয়, সেদিকে খেয়াল রাখব।’ ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জঁ মার্ক সেরে শার্লটও শাহরুখের সঙ্গে এক ফ্রেমে ধরা দিয়েছেন। সেই ছবি টুইট করে তাঁর মন্তব্য, ‘মুম্বাইয়ের সর্বোচ্চ পুরস্কারপ্রাপ্ত ‘নাইট’-এর সঙ্গে দেখা করে বেশ ভালো লাগল। ‘লিয়ন ডি অনার’ এই সম্মান বলিউডের শাহর জন্য এক্কেবারে উপযুক্ত।

জম্পেশ মধ্যাহ্নভোজ আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ শাহরুখ খান।’ কুইবেকের রাষ্ট্রদূত বললেন, ‘শাহরুখের বাড়িতে একটা দারুণ সন্ধ্যা কাটল অন্যান্য দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে। কিউবেকের সিনেমা থেকে শুরু করে সেখানকার অত্যাধুনিক স্টুডিও কতটা দারুণ, সে কথাও আলোচনা হলো বলিউড সুপারস্টারের সঙ্গে। আমন্ত্রণের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ শাহরুখ।’

এই মহাভোজে আমন্ত্রণের পাশাপাশি এতগুলো ভালো সিনেমা উপহার দেওয়ার জন্য দক্ষিণ এশিয়ার ট্রেড কমিশনার অ্যালান গিমেলও শাহরুখকে ধন্যবাদ জানান। স্কটল্যান্ডে কীভাবে ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ সিনেমার শুটিং হয়েছিল, স্মৃতির পাতা ঘেঁটে সেসব আলোচনাও করলেন কিং খানের সঙ্গে। পাশাপাশি এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শাহরুখ খানকে যে ডক্টরেট উপাধি দেওয়া হয়েছে, তার জন্যও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেন টুইটে গিমেল।

এইচএ