সাবেক স্বামী জনি ডেপের সঙ্গে মানহানি মামলাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি বহু খবরের পাতার শিরোনাম হয়েছেন অ্যাম্বার হার্ড। তবে ডেপের সঙ্গে রেকর্ডিং প্রকাশ হবার পর হার্ডের খুঁটির জোর যেন খানিকটা দুর্বলই হয়ে পড়েছে। তার বিরুদ্ধে ভেসে বেড়াচ্ছে নানা 'বাজে শিরোনাম'ও। আর এতেই চটেছেন এই মার্কিন অভিনেত্রী! সে কারণে নিজের জনসংযোগ টিমকে তিনি বরখাস্ত করেছেন বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক পোস্ট।

অভিনেতা-অভিনেত্রীদের যে নিজস্ব জনসংযোগ টিম থাকে সে কথা কারোই অজানা নয়। গণমাধ্যমকে সামলানোও তাদেরই কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। কিন্তু নিজের বিরুদ্ধে নেতিবাচক সংবাদ দেখে আর মাথাটা ঠিক রাখতে পারেননি হার্ড। জনসংযোগ টিম তাদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছেন বলেই হয়তো মনে করছেন তিনি। তাই পুরনো দলকে ছাঁটাই করে নতুন জনসংযোগ টিম ভাড়া করেছেন অ্যাম্বার হার্ড।

এক সূত্রের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক পোস্ট জানায়, 'গণমাধ্যমের বাজে শিরোনাম মোটেও পছন্দ করেন না হার্ড।' ভিন্ন আরেকটি সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, 'অ্যাম্বার হার্ডের ধারণা, তার জীবনের গল্পগুলো সঠিকভাবে লেখা হচ্ছে না এবং এ নিয়ে তিনি হতাশ।' 

সাবেক স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে ৫০ মিলিয়ন ডলারের মানহানি মামলা করেছেন হলিউড অভিনেতা জনি ডেপ। মামলার ট্রায়াল এখনও চলমান এবং এরই মধ্যে সাক্ষ্য দিয়েছেন ডেপ। ২০১৮ সালে ওয়াশিংটন পোস্টের মতামত লিখনে ডেপের বিরুদ্ধে গৃহ-সহিংসতার অভিযোগ আনেন অ্যাম্বার হার্ড। ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড 'দ্য সান' ডেপকে 'স্ত্রীকে পেটানো পুরুষ' হিসেবে আখ্যা দেয়। এ ধরনের মন্তব্যের ফলে তার কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে এবং অভিনয় ক্যারিয়ার ধ্বংস হয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন অভিনেতা।

দ্য রাম ডায়েরি'র শ্যুটিং এর সময় পরিচয় হয় জনি ডেপ ও অ্যাম্বার হার্ডের। ২০১৫ সালে তারা বিয়ে করেন এবং বিয়ের এক বছরের মধ্যে বিচ্ছেদের আবেদন করেন। ২০১৭ সালে তাদের বিচ্ছেদ চূড়ান্ত হয়।

এইচএ /এএল