ক্যানসারের কাছে পরাজিত হয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমানো ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেলের কবর সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। রুবেলের স্ত্রীর আবেদনের প্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) মারা যান জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার রুবেল। মৃত্যুর পর হোম অব ক্রিকেটখ্যাত মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জানাজা শেষে রুবেলকে দাফন করা হয় বনানী কবরস্থানে। শুক্রবার (২২ এপ্রিল) রুবেলের স্ত্রী চৈতি ফারহানা রূপা স্বামীর কবর জিয়ারত করতে এসে কবর স্থায়ীকরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আকুল আবেদন জানান।

 বনানী কবরস্থানে কাউকে দাফন করার ২ বছর পর সেখানে নতুন করে কাউকে দাফন করার রীতি রয়েছে। তবে আছে কবর স্থায়ী করার পদ্ধতি, সেক্ষেত্রে প্রায় কোটি টাকার মত খরচ হয়। রুবেলের চিকিৎসা করাতে গিয়ে সর্বস্বান্ত হওয়ার পরিবারের স্বভাবতই সেই সাধ্য নেই।

মানবিক দিক বিবেচনায় তাই উত্তর সিটি কর্পোরেশন রুবেলের কবর স্থায়ী করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রবিবার (২৪ এপ্রিল) ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে রুবেলের স্ত্রী চৈতির মৌখিক আবেদনের প্রেক্ষিতে মেয়র আতিক সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগকে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।

মেয়র আতিক বলেন, ‘মোশাররফ হোসেন রুবেল নিজের জন্য খেলেননি, দেশের জন্য খেলেছেন। তার অবদান দেশের মানুষকে গর্বিত করেছে। সে কারণে তার কবরটি স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ করা আমাদের দায়িত্ব বলে মনে করছি। যে মানুষটি বিশ্বজুড়ে বাংলাদেশের সুনাম ছড়িয়ে দিয়েছেন সে মানুষটি চিরবিদায়ের বেলায় এক টুকরো মাটি পাবে না, তা হতে পারে না।

উত্তর সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মেয়র আতিক বর্তমানে পবিত্র ওমরা পালন করতে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন। ওমরা শেষে দেশে ফিরে বিধি মোতাবেক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ক্রিকেটার রুবেলের কবরটি স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ করে দেওয়া হবে।

জেডআই/