শনিবার   ০২:১২ পূর্বাহ্ন
৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১  |  ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮  |  ২৯শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
লগইন
সর্বশেষ

Loading...

আফিফকে বল ছুড়ে মেরে শাস্তি পেলেন আফ্রিদি

আফিফকে বল ছুড়ে মেরে শাস্তি পেলেন আফ্রিদি

আফিফকে বল ছুড়ে মেরে শাস্তি পেলেন আফ্রিদি

বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যকার তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিটি অন্তত দুটি কারণে আলোচিত। প্রথমত, খেলা চলাকালে মাঠে ঢুকে এক দর্শকের মোস্তাফিজুর রহমানের পায়ে চুম্বন করা। দ্বিতীয়ত আফিফ হোসেনের পায়ে বল ছুড়ে মারা। দ্বিতীয় কারণে শাস্তি পেতে হয়েছে পাকিস্তানি পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদিকে।

রোববার (২১ নভেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। আইসিসির লেভেল-১ এর কোড অব কন্ডাক্ট ভাঙেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। কোড অব কন্ডাক্টের অনুচ্ছেদ নম্বর ২.৯ ভঙ্গ করেন তিনি। এই ধারায় পাকিস্তানি পেসারকে সর্বনিম্ন সাজা দিয়েছে আইসিসি। ম্যাচ ফির ১৫ শতাংশ জরিমানার সঙ্গে আনুষ্ঠানিক ভর্ৎসনার পাশাপাশি ১ ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন আফ্রিদি।

ফিল্ড আম্পায়ার গাজী সোহেল, সোহেল তানভীর এবং থার্ড আম্পায়ার মাসুদুর রহমান মুকুল আর চতুর্থ আম্পায়ার শরফদ্দৌলা ইবনে সৈকত অভিযোগ গঠন করেন। পরে আফ্রিদি তার অপরাধ স্বীকার করায় শুনানির প্রয়োজন পড়েনি।

ঘটনার সূত্রপাত ৩ ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ। তখন বাংলাদেশের ইনিংসের তৃতীয় ওভার চলছে। আগের দুই ওভারে ওপেনারদের হারিয়ে বিপাকে বাংলাদেশ। চার নম্বরে খেলতে নামা আফিফ হোসেন এসেই আফ্রিদির প্রথম বলে হাঁকিয়েছেন ছক্কা। সেটা আর কার ভালো লাগে! শাহিনেরও নিশ্চয়ই লাগেনি।

আফিফ তার দ্বিতীয় বলে ড্রাইভ খেলেন। বল যায় শাহিন শাহর হাতে। বল পেয়েই আফিফের দিকে সেটি ছুড়ে মারেন শাহিন শাহ। আঘাত করে আফিফের পায়ের অরক্ষিত অংশে।

পরে দেখা গেছে, পপিং ক্রিজের ভেতরেই ছিলেন আফিফ। রান নেয়ার কোনো চেষ্টাও করেননি তিনি। অনেকটা অকারণেই আফিফের দিকে বল ছুড়ে মেরেছেন পাকিস্তানি পেসার।

প্রথম কারণে মোস্তাফিজের সেই ভক্ত রাসেলকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। রোববার (২১ নভেম্বর) তাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর ফৌজদারি কার্যবিধি ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করা হয়।

শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়া তার রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

জেডআই/এম. জামান