শনিবার   ০১:১২ পূর্বাহ্ন
৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১  |  ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮  |  ২৯শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
লগইন
সর্বশেষ

Loading...

শারীরিক সম্পর্ক কেন করবেন

শারীরিক সম্পর্ক কেনো করবেন

শারীরিক সম্পর্ক কেনো করবেন

শারীরিক সম্পর্ক পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তে গোপন একটি বিষয়। কিন্তু শারীরিক সম্পর্কের উপকারিতার বিষয়টি আর গোপন নেই। শারীরিক সম্পর্ক ভালো না খারাপ তা নিয়ে অনেক গবেষণা হয়েছে। গবেষণা হয়েছে এর প্রয়োজনীতা এমনকি মাত্রা নিয়েও।

আর এতে গবেষকেরা মোটামুটি নিশ্চিত হয়েছে যে শারীরিক সম্পর্কের উপকারিতা অনেক। শারীরিক সম্পর্ক শুধু সুস্থ যৌন বা বৈবাহিক সম্পর্কের জন্য নয় বরং শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্যও শারীরিক সম্পর্কের প্রয়োজনীতা অনেক।

নারী-পুরুষের শারীরিক সম্পর্ক কতটা জরুরি তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে অনেকের মনেই। একটা সুস্থ, সুন্দর প্রেম বা বৈবাহিক জীবনে শারীরিক সম্পর্ক কতটা প্রভাব ফেলতে পারে সে সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা নেই অনেকেরই। দুটো মানুষের জীবনে শারীরিক সম্পর্ক ঠিক কতটা প্রভাব ফেলবে তা পুরোপুরি নির্ভর করে ওই দুজন মানুষের নিজস্ব বিশ্বাস, শারীরিক চাহিদা এবং তাদের সম্পর্কের ধরন বা গভীরতার ওপর।

যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের লাইসেন্সপ্রাপ্ত মনোবিজ্ঞানী এবং সার্টিফাইড সেক্স থেরাপিস্ট ড. জ্যানেট ব্রিটোর বরাত দিয়ে লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট হেল্থ ডট কমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, শারীরিক সম্পর্ক ছাড়াও দুটো মানুষ সুন্দর একটি সম্পর্কে আবদ্ধ থাকতে পারেন, নিজেদের মধ্যে ভালোবাসা তাতে কমবে না, এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। শারীরিক সম্পর্কে না জড়ানোর অনেকগুলো কারণ থাকতে পারে সেক্ষেত্রে। যেমন:

১. শারীরিক সম্পর্কের আগ্রহ বা চাহিদা কম থাকা

২. কোনো মেডিকেল কন্ডিশন থাকা বা দীর্ঘকালীন রোগে ভোগা

৩. শারীরিক সম্পর্কে জড়ানোর আগে সঙ্গীকে আরও ভালোভাবে জানতে চাওয়া

তবে, বিশেষজ্ঞরা এটাও বলছেন, সুন্দর, রোমান্টিক একটি সম্পর্কের জন্য শারীরিক সম্পর্ক বেশ জরুরি। শারীরিক সম্পর্কের ফলে সঙ্গীর সঙ্গে বেশ গভীর একটি বন্ধন তৈরি হয়, অনেক সময় এটা হয়ে ওঠে ভালোবাসা ও স্নেহ প্রকাশ করার অন্যতম একটি মাধ্যম। সম্পর্কের একটি নিশ্চয়তা তৈরি করে দেয় শারীরিক সম্পর্ক, এমনটাও বলছেন তারা। এগুলো ছাড়াও নিয়মিত শারীরিক সম্পর্কে থাকার কারণে যুগল আরও কিছু বাড়তি সুবিধা পেতে পারেন। যেমন :

১. নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়

২. সঙ্গীকে কাছ থেকে জানার ও বন্ধন সুদৃঢ় করার একটি মাধ্যম তৈরি হয়

৩. মানসিক অবসাদ দূর হয়

৪. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে

৫. হৃদরোগের ঝুঁকিও কমাতে সাহায্য করে

তবে, শারীরিক সম্পর্কই যে সঙ্গীকে ভালোভাবে বোঝার একমাত্র উপায়, তা কিন্তু নয়। এটি সঙ্গীকে জানার ও ভালোবাসার ক্ষেত্রে অনেক বড় ভূমিকাও পালন করে, তবে এর বাইরেও কিছু বিষয় রয়েছে যা করলে সঙ্গীর প্রতি প্রকাশ পাবে ভালোবাসা। যেমন, চুমু খাওয়া, একসঙ্গে হাত ধরে হাঁটা, সঙ্গীকে জড়িয়ে ধরে থাকা ইত্যাদি। যদিও একটা সম্পর্ককে সুন্দর করে টিকিয়ে রাখতে আর এগিয়ে নিতে যেটা সবচেয়ে বেশি দরকার তা হচ্ছে, পারস্পরিক বোঝাপড়া, সম্পর্কে বিশ্বাস রাখা আর একে অপরের পাশে থাকা।

এস/এএমকে/ডাকুয়া