শনিবার   ০২:১২ পূর্বাহ্ন
৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১  |  ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮  |  ২৯শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
লগইন
সর্বশেষ

Loading...

বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম, দিশেহারা সাধারণ মানুষ

বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম, দিশেহারা সাধারণ মানুষ

বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম, দিশেহারা সাধারণ মানুষ

চাল, ডাল, ভোজ্য তেল ও জ্বালানি তেলসহ প্রায় সব নিত্যপণ্যের দাম বাড়ায় দিশেহারা সাধারণ মানুষ। আয়ের চেয়ে ব্যয়ের হিসেব বাড়তে থাকায় দুশ্চিন্তায় কাটছে জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত। বুধবার (৩ নভেম্বর) রাতে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটার প্রতি ১৫ টাকা করে বাড়িয়েছে সরকার। শুধু তাই নয় তার একদিন না যেতেই বৃহস্পতিবার সকালেই এলপি গ্যাসের সিলিন্ডারের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়া হয়।

এমন অবস্থায় ক্রমেই দুঃসহ হয়ে উঠছে নিম্ন-মধ্যবিত্তদের জীবন। চাপা কষ্টগুলো যেন রোজকার সঙ্গী তাদের। দীর্ঘ দেড় বছর করোনা মহামারিতে দারিদ্র্যের হার বেড়েছে। এমন দুরাবস্থা থেকে মধ্যবিত্তরা যখন সামনে এগোতে মরিয়া, তখন শতাংশের মূল্যস্ফীতির টেনে ধরছে পেছন থেকে।

আসছে শীতে সবজি ও আমন ধানের সরবরাহ বাড়লে দাম কমার যে আশা নিয়ে অপেক্ষায় আছে মানুষ, কোরোসিন-ডিজেল আর এলপি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি তাতে যেন গুড়ে বালি।

শুক্রবার (০৫ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর মিরপুরের ১১ নম্বর বাজার, মিরপুর কালশী বাজার ও পল্লবী এলাকা ঘুরে দেখা যায় সবজির দাম কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা দাম বেড়েছে।

মিরপুর ১১ নম্বর বাজারের সবজি বিক্রেতা বলেন, শীতের সময়ে যে পরিমান সবজি বাজারে আমদানি হয় সে অনুযায়ী অনেক কম থাকায় দাম বেড়েছে। তেলের দাম বাড়ায় বেড়েছে পরিবহন খরচ এর সঙ্গে বেড়েছে সবজির দাম।

এ সব বাজারে আলুর দাম বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা কেজি। দেশি পেঁয়াজ কেজি ৬০ টাকা। ইন্ডিয়ান ও মায়ানমারের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকায়।  এইসব বাজারে গতসপ্তাহের দামে বিক্রি হচ্ছে কাঁচামরিচ। প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। 

ভোজ্যতেলের প্রতি লিটার খুচরা বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকা। এছাড়াও বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের তেলের লিটার বিক্রি হচ্ছে ১৫৫ থেকে ১৬০ টাকায়। কমেছে চিনির দাম। বাজারে প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮০ টাকায়। এছাড়া প্যাকেট চিনি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকায়। আটা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়। 

বাজারে অপরিবর্তিত আছে ডিমের দাম। লাল ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। হাঁসের ডিমের ডজনে দাম বেড়েছে বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা। সোনালী (কক) মুরগির ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকায়।

বাজারে কমেছে মুরগির দাম। ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকা। গত সপ্তাহের থেকে ১০ টাকা দাম কমে বিক্রি হচ্ছে সোনালি মুরগি। কেজি ২৯০ থেকে ৩০০ টাকা। লেয়ার মুরগি আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। কেজি ২২০ থেকে ২৩০ টাকা। 

নিম্ন-মধ্যবিত্তরা বলছেন, সরকার দাম বাড়িয়েছে কয়েকটা জিনিসের, কিন্তু এর সাথে সম্পৃক্ত সবকিছুর দাম স্বাভাবিকভাবেই বাড়বে। যেমন, ডিজেলের দাম বাড়ার সাথে বাস, ট্রাক ও লঞ্চসহ সব ধরনের পরিবহন সম্পৃক্ত। স্বাভাবিকভাবেই পরিবহন ব্যয় বাড়লে পণ্যের দামের ওপরও প্রভাব পড়বে। এছাড়া এলপিজি সিলিন্ডারের সাথে হোটেল, রেস্তোরাঁর খাবার এবং জ্বালানির সাথে পুরো কৃষি খাতই জড়িত।

শুধু তাই নয় গত কিছুদিন ধরে সবজির বাজারও আগুন। এমন অবস্থায় ফের জ্বালানির দাম বেড়ে গেলে বাজারে যাওয়াই কঠিন হয়ে যাবে। এমন অবস্থায় জীবনধারণের খরচ মেটাতে বড় রকমের চাপে পড়তে হবে সীমিত আয়ের মানুষদের।

টিআর/