শনিবার   ১২:১০ পূর্বাহ্ন
২৩শে অক্টোবর, ২০২১  |  ৮ই কার্তিক, ১৪২৮  |  ১৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
লগইন
সর্বশেষ

Loading...

‘অবিচার করা হয়েছে, বেশি বললে নিষিদ্ধ হব’

‘অবিচার করা হয়েছে, বেশি বললে নিষিদ্ধ হব’

‘অবিচার করা হয়েছে, বেশি বললে নিষিদ্ধ হব’

আমার খেলোয়াড়দের প্রতি অবিচার করা হয়েছে, ‘ওই পেনাল্টি তো হতেই পারে না। আরও বেশি কিছু বললে আমি এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হব।নেপালের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে কথাগুলো বলেছেন বাংলাদেশ দলের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোন।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) মালদ্বীপের রাজধানী মালের জাতীয় স্টেডিয়ামে কঠিন এক সমীকরণ সামনে রেখে নেপালের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। হারলে কিংবা ড্র করলে চলবে না; ফাইনালের টিকিট পেতে চাই শুধুই জয়। অলিখিত ফাইনালে রূপ নেয় ম্যাচটি।

তাই জয়ের লক্ষ্য সামনে রেখেই নেপালের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল অস্কার ব্রুজোনের শিষ্যরা। দুর্দান্ত আক্রমণে ম্যাচের অষ্টম মিনিটে লিড নেয় বাংলাদেশ দল। ১-০ গোলের এই লিডটা জামাল ভূঁইয়ারা ধরে রেখেছিল ৮৬ মিনিট পর্যন্ত। তারপর রেফারির বিতর্কিত পেনাল্টিতে স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয় বাংলাদেশের।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দলের কোচ অস্কার বলেন, ‘রেফারি আমার খেলোয়াড়দের প্রতি অবিচার করেছে। তিনি আনফেয়ার ছিলেন। আমি ভারত ম্যাচের পর থেকেই রেফারিং নিয়ে বলে আসছিলাম। আজ এর চূড়ান্ত রূপ নিলো।

বাংলাদেশকে দেওয়া দুটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তই পক্ষপাত মনে করেন অস্কার, ‘জিকো বক্সের বাইরে প্রথমে পা দিয়ে স্পর্শ করেছে। এরপর বল তার হাতে লেগেছে, সেটি ইচ্ছেকৃত নয়। লাল কার্ড দেওয়ার মতো ছিল না। পেনাল্টির কথা আর কী বলব! এটি সম্পূর্ণ অর্থে ভুল সিদ্ধান্ত। আরও বেশি কিছু বললে আমি এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হব।

গত আগস্ট মাসে অস্কার এমন ঘটনার শিকার হয়েছিলেন। বসুন্ধরা কিংস শেষ ম্যাচে ভারতের মোহনবাগানের বিরুদ্ধে এক গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ১০ জন নিয়ে ড্র করে। এই ড্রয়ের ফলে কিংসের বদলে মোহনবাগান পরবর্তী রাউন্ডে খেলে। দুই মাস পর জাতীয় দলেও একই ঘটনার শিকার অস্কার। এই ম্যাচেও তার দল ১০ জনে পরিণত এবং টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়।

দুই ঘটনা সম্পর্কে অস্কার বললেন, ‘বাংলাদেশের ফুটবলের চক্রান্ত ছাড়া আর কী হতে পারে। বাংলাদেশের ক্লাব বসুন্ধরা কিংস যেন উন্নত পর্যায়ে যেতে না পারে সেজন্য এই সিদ্ধান্ত। জাতীয় দলের ক্ষেত্রেও এমন হলো।

জেডআই/এম. জামান