শুক্রবার   ০৭:০৯ পূর্বাহ্ন
১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১  |  ২রা আশ্বিন, ১৪২৮  |  ১০ই সফর, ১৪৪৩ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
লগইন
সর্বশেষ

Loading...

দাঁত সাদা করে যেসব খাবার

দাঁত সাদা করে যেসব খাবার

দাঁত সাদা করে যেসব খাবার

সারা দিনই আমরা নানা রকম খাবার খেয়ে থাকি। এমন অনেক খাবার আছে, যা আমাদের দাঁতের সাদা রঙ হরণ করে হলদেটে করে দেয়। এর জন্য অনেক সময় আমরা আমাদের সুন্দর হাসিটিও লুকিয়ে রাখি।

তবে যেসব খাবার দাঁতের সাদা রঙকে মলিন করে দেয় সেসব খাবার ত্যাগ করে বরং যেসব খাবারে দাঁতের সাদা রঙ ফিরে আসবে আমরা তা খেতে পারি। আসুন জেনে নেই, কোন খাবারে দাঁতের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়।  

স্ট্রবেরি : মনে হতে পারে লাল রঙের ফলটি কী করে দাঁত সাদা করতে পারে! পারে, কারণ স্ট্রবেরির মধ্যে আছে ম্যালিক এসিড। এই এসিড আপনার দাঁতকে সাদা করে বলে জানিয়েছেন দন্ত চিকিৎসকেরা।

পেঁয়াজ : অনেকেই জানেন না পেঁয়াজ দাঁতের জন্য ভীষণ উপকারী। এর মধ্যে আছে অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টিসেপটিক। আর একটি বিষয় হলো পেঁয়াজ স্বচ্ছ। তাই এটি খেলে দাঁতে কোনো দাগ হয় না। চিকিৎসকেরা ঠাট্টা করে বলে থাকেন কাঁচা পেঁয়াজ খাওয়ার পর মুখের গন্ধ দূর করতে বেশির ভাগ মানুষ দাঁত মাজেন। ফলে দাঁত ঝকঝকে না হয়ে পারে না।

দুধ : পুষ্টিকর দুধ দাঁতের স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। কারণ এতে থাকা ক্যালসিয়াম দাঁতকে শক্তিশালী করে। এনামেলে শক্তি বৃদ্ধি করে দাঁতকে সাদা ও উজ্জ্বল করে।

গাজর : আপেলের মতোই কাঁচা গাজর দাঁতের জন্য ভীষণ উপকারী। গাজর খেলে দাঁতের ফাঁকে ঢুকে থাকা খাদ্যকণা বেরিয়ে আসে। এ ছাড়া তা দাঁত ও মাড়ির স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।

বাদাম : শক্ত খাবার চিবিয়ে খেলে আপনার দাঁতের ক্ষয় পূরণ হয় এবং দাঁতকে শক্ত করে। বিকেলের নাশতায় আপনি যদি কয়েকটি বাদাম খান। তবে তা আপনার দাঁতকে ঝকঝকে করতে সাহায্য করে।

পনির : শক্ত পনিরে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম রয়েছে। এটি দাঁত ও মাড়িকে শক্তিশালী করে। তবে সাদা পনির খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তাররা। ফলে দাঁতে কোনো দাগ হবে না।

পানি : বেশি পরিমাণ পানি পান করলে আপনার মুখ পরিষ্কার থাকবে। তবে রেড ওয়াইন বা ব্ল্যাক কফি কিন্তু আপনার দাঁতে দাগ তৈরি করবে। তাই এগুলো খাবার পর প্রতিবার একবার পানি পান করার পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তারেরা। আর সোডা মেশানো পানি খুব বেশি না খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কারণ এতে এনামেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

আপেল : আপেলে কামড় দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে একটা বড় ধরনের আওয়াজ হয়। এটা কারও জন্য বিরক্তির কারণ হলেও দাঁতের জন্য কিন্তু দারুণ উপকারী। এভাবে কামড়ে যেসব খাবার খাওয়া যায় তা মাড়ির জন্য ভীষণ উপকারী। এ ছাড়া আপেল খাওয়ার সময় যে পরিমাণ লালা নিঃসরণ হয় তাতে মুখের মধ্যকার অনেক ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হয়।

ব্রকলি : কেউ যদি দিনের বেলা ব্রকলি খায় তাহলে তা দাঁতের গায়ে লেগে থাকে। ফলে ব্রাশ করলে খুব ভালোভাবে দাঁত পরিষ্কার হয়।

তারিক/এম. জামান